ক্ষমতার দাপট: বিয়ে করে সংসার পাতা রিটনকে বানানো হলো নগর ছাত্রলীগের সহসম্পাদক

0

নগর ছাত্রলীগের কমিটির মেয়াদ শেষ হয়েছে অনেক আগেই। নতুন কমিটির দাবিতে ছাত্রলীগের একাংশের নেতাকর্মীরা বিভিন্ন সময় আন্দোলন করেছে। এরমধ্যেই এ কমিটিতে নতুন করে একজনকে দেওয়া হয়েছে সহসম্পাদকের পদ। যাঁকে পদটি দেওয়া হয়েছে তিনি ইতোমধ্যে বিয়ে করে দিব্যি সংসার করছেন।

গত ৪ জানুয়ারি নগর ছাত্রলীগ সভাপতি ইমরান আহমেদ ইমু ও জাকারিয়া দস্তগীর স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টির সতত্য নিশ্চিত হওয়া যায়। ওই চিঠিতে সহসম্পাদকের পদ দেওয়া হয় রেজাউল করিম রিটনকে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, রিটন নিজেকে ওমরগণি এমইএস কলেজ ছাত্রলীগের নেতা হিসেবে পরিচয় দিলেও বছরখানেক আগে ঘটা করে বিয়ে করেন। বুধবার (১২ জানুয়ারি) ফেসবুকে এ নিয়ে চলে সমালোচনা ঝড়। বিয়ে করে সংসার পাতানো একজনকে সহসম্পাদকের পদ দেওয়াকে ভালো চোখে দেখছেন না খোদ নগর ছাত্রলীগের বড় একটি অংশ। তাঁরা এটিকে নগর ছাত্রলীগ সভাপতি ও সম্পাদকের ক্ষমতার জোর দেখানো বলেও মন্তব্য করেন।

এ ব্যাপারে নগর ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওয়াহেদ রাসেল জয়নিউজকে বলেন, ২৯ বছর পর ছাত্রলীগে পদ পাওয়া গঠনতন্ত্রবিরোধী। তাঁর (রিটন) বয়স পেরিয়ে গেছে অনেক আগে, উপরন্তু তিনি বিবাহিত। আমি নিজেই লজ্জিত এমন কাণ্ড দেখে।

এ ব্যাপারে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে নগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া দস্তগীর জয়নিউজকে বলেন, রেজাউল করিম রিটন যে বিবাহিত এর কোনো প্রমাণ নেই। তিনি এখনো ছাত্র।

জয়নিউজ/হিমেল/এসআই
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...