বোয়ালখালীতে ৫ মাদ্রাসা শিক্ষার্থীকে বলাৎকারের অভিযোগ, বাবুর্চি গ্রেফতার

0

বোয়ালখালীতে ৫ শিক্ষার্থীকে বলৎকারের অভিযোগে হাফেজ জাকের (১৯) নামের এক মাদ্রাসার বাবুর্চিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (১ জুন) সকালে  তার বিরুদ্ধে এক মাদ্রাসা শিক্ষার্থীর অভিভাবক থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। এরপর অভিযুক্ত জাকেরকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বোয়ালখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবদুল করিম।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, বাবুর্চি জাকের বাঁশখালী উপজেলার পূর্ব কাথারিয়া গ্রামের নবী আহমদের ছেলে। সে উপজেলার পশ্চিম সারোয়াতলীর মাদ্রাসায়ে ত্যৈয়বিয়া তাহেরিয়া দরবেশীয়া সুন্নিয়া এতিম খানা ও হেফজখানায় বাবুর্চির কাজ করে।

মামলার বিবরণীতে জানা যায়, গত বছরের ১৭ জুলাই হেফজ শিক্ষার জন্য নির্যাতনের শিকার ওই ছেলে (৯) মাদ্রাসায় ভর্তি হয়। এবারের রমজানের বন্ধে ১২ এপ্রিল সে বাড়ি যায়। গতকাল ৩১মে ছেলে মাদ্রাসায় অভিভাবক নিয়ে যেতে চাইলে সে কান্নাকাটি করতে থাকে ও মাদ্রাসায় যেতে অনীহা প্রকাশ করে। একপর্যায়ে সে তার অভিভাবকদের জানায় মাদ্রাসার বাবুর্চি হাফেজ জাকের তার সাথে খারাপ কাজ করে।

গত ২ মার্চ রাত ১০টার দিকে ও ৫ এপ্রিল রাত ২টায় জোর করে বলাৎকার করেছে। এছাড়াও মাদ্রাসার আরো ৫ শিক্ষার্থীকে জাকের বিভিন্ন সময় বলাৎকার করেছে।

শিশুটির অভিভাবক বলেন, অন্যান্য শিশুদের সাথে কথা বলে বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছি। এরপর তাদের অভিভাবকদের সাথে আলোচনা করে এবং মাদ্রাসার পরিচালকে জানিয়ে জাকেরের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছি।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পটিয়া সার্কেল) তারিক রহমান বলেন, অভিযুক্ত আসামিকে ইতোমধ্যেই গ্রেফতার করা হয়েছে।  এছাড়া তদন্ত সাপেক্ষে অভিযুক্তের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে আইনি প্রক্রিয়া নিশ্চিত করা হবে।

জয়নিউজ/মাসুদ/পিডি

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...