মার্কিন নির্বাচনে হাতি-গাধার দৌড়ে এগিয়ে কে?

0

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠেয় নির্বাচনে জয়ী হবেন দেশটির ৪৬তম প্রেসিডেন্ট।  বিশ্বের ক্ষমতাধর এ দেশটির মসনদে চার বছরের জন্য আবারও ডোনাল্ড ট্রাম্প থাকবেন কিনা সেই সিদ্ধান্ত আজ মঙ্গলবার নেবেন মার্কিন ভোটাররা।  এ নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট দলীয় প্রেসিডেন্ট প্রার্থী জো বাইডেনের কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়েছেন রিপাবলিকান দলীয় প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প।

বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাচনে প্রতীক ‘হাতি’। এবার ট্রাম্পের মূল প্রতিদ্বন্দ্বী ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন। তার প্রতীক ‘গাধা’। শেষ হাসি কে হাসবে সেটা নিশ্চিত হওয়া যাবে শিগগিরই। তবে বিভিন্ন সমীক্ষায বলছে এবার ট্রাম্পের চেয়ে এগিয়ে বাইডেন।

তবে আমেরিকার আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের পর সহিংসতা ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন দেশের বেশিরভাগ মানুষ। সম্প্রতি এক সমীক্ষায় প্রতি চারজনের মধ্যে তিনজনই মনে করছেন, নির্বাচনের পর সহিংসতা ছড়িয়ে পড়বে।

দৈনিক ইউএস টুডে ও সাফোক ইউনিভারসিটি যৌথভাবে এ সমীক্ষা পরিচালনা করেছে। তাতে দেখা যায়- মার্কিন এক-চতুর্থাংশ ভোটার সহিংসতা বিষয়ে উদ্বিগ্ন।

তাছাড়া আমেরিকার ভোটের সময় ভুয়া তথ্য ছড়িয়ে পড়তে পারে। এর পাশাপাশি সম্ভাবনা রয়েছে অস্থিরতা বাড়ার। এরইমধ্যে এমনই আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন ফেসবুকের কর্ণধার মার্ক জুকারবার্গ। তার মতে, এই ভোট সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটগুলোর কাছে এক কঠিন পরীক্ষা হতে চলেছে।

এদিকে ট্রাম্প যদি আবার প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন তাহলে খুব বড় ধরনের নীতি পরিবর্তনের কোনও ইঙ্গিত এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি। ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্ট হিসেবে ট্রাম্প এখন পর্যন্ত দ্বিতীয় মেয়াদের কোনও লক্ষ্য দিয়ে হাজির হননি। শুধু সাক্ষাৎকার, বিতর্ক ও ভাষণে তার দ্বিতীয় মেয়াদের জন্য বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি হাজির হয়েছে।

কিন্তু সমালোচকদের কোনও সন্দেহ নেই যে, ট্রাম্পের প্রেসিডেন্ট পদে আরও চার বছর মানে হলো, ধনী ও গরিব, বিচার ও বর্ণবাদ, সত্য ও মিথ্যার ব্যবধান আরও বাড়বে। ট্রাম্প নির্বাচিত হলে আগামী চার বছরে রাজনৈতিক মেরুকরণ বিপজ্জনক অবস্থায় পৌঁছাতে পারে বলেও আশঙ্কা করছেন তারা।

জয়নিউজ/পিডি

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...