আগামী সপ্তাহে চালু হচ্ছে বন্দর হাসপাতালের করোনা ইউনিট

0

চট্টগ্রাম বন্দরে করোনার ছোবলে ইতোমধ্যে প্রাণ হারিয়েছেন বেশ কয়েকজন কর্মকর্তা –কর্মচারী। এছাড়া আক্রান্ত হয়েছে শতাধিক। বন্দরের প্রায় ৬ হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারী ও তাদের পরিবারের করোনা চিকিৎসার জন্য নতুন হাসপাতাল ভবনে গড়ে তোলা হচ্ছে করোনা ইউনিট। এতে থাকবে পরিপূর্ণ আইসিইউ-ভেন্টিলেটরসহ সকল সুবিধা।

বন্দরের তথ্য মতে, করোনা রোগীদের জন্য আইসিইউ সুবিধার অপ্রতুলতা এবং প্রতিদিন অক্সিজেনের অভাবে শ্বাসকষ্টে রোগীর মৃত্যুর ঘটছে প্রতিদিন। তাই বন্দর কর্তৃপক্ষ ১০ বেডের স্বয়ংসম্পূর্ণ আইসিইউ বেড স্থাপন করছে করোনা ইউনিটে। বন্দর হাসপাতালে নিজস্ব ১৯ জন চিকিৎসক থাকলেও আউট সোর্সিংয়ের মাধ্যমে অভিজ্ঞতাসম্পন্ন আরো ৫০ জন ডাক্তার, নার্স ও টেকনেশিয়ান নিয়োগের কাজ চলতি সপ্তাহে সম্পন্ন হবে।

এব্যাপারে বন্দর সচিব মো. ওমর ফারুক জয়নিউজকে বলেন, আমরা সাধ্যমতো আমাদের কাজ এগিয়ে নিচ্ছি। অতি সত্বর চিকিৎসা কার্যক্রম শুরু করতে পারবো বলে আশা করছি।

চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সদস্য (প্রশাসন ও পরিকল্পনা) এবং করোনা ইউনিট প্রতিষ্ঠার দায়িত্বে থাকা মো. জাফর আলম জয়নিউজকে বলেন, প্রথম পর্যায়ে হাই ফ্লো অক্রিজেন সিস্টেম গড়ে তোলা হচ্ছে। দ্বিতীয়ধাপে হবে আইসিইউ সংক্রান্ত অন্যান্য কার্যক্রম।

প্রয়োজনীয় জনবল নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে জানিয়ে তিনি আরো বলেন, ইতোমধ্যে প্রশিক্ষিত জনবল নিয়োগের ব্যাপারে সমস্ত কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে। প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি ও খুব কম সময়ে চলে আসবে। আশাকরছি আগামী ৭ থেকে ১০ দিনের মধ্যেই আমরা চিকিৎসা কার্যক্রম শুরু করতে পারবো।

প্রসঙ্গত, গত ২ জুন মঙ্গলবার বন্দর চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল সৈয়দ আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সভায় স্বল্প সময়ের মধ্যে বন্দরের নতুন হাসপাতাল ভবনে ৫ থেকে ১০ আইসিইউ-ভেন্টিলেটরসহ স্বয়ংসম্পূর্ণ ইউনিট স্থাপনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এক মাসের মধ্যে আইসিইউ ইউনিট চালুসহ চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ নিজস্ব তহবিল থেকে তিন ধাপে প্রকল্পটি গড়ে তোলার পরিকল্পনাটি বাস্তবায়ন করার কথা রয়েছে।
জয়নিউজ/গিয়াস/পিডি

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...