সব হাসপাতালে করোনা চিকিৎসার সিদ্ধান্তে আপত্তি প্রাইভেট মেডিকেলের

0

দেশে সব হাসপাতালে কোভিড রোগীদের চিকিৎসা করতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশকে স্বাগত জানিয়েছে বাংলাদেশ প্রাইভেট ক্লিনিক, হাসপাতাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার ওনার অ্যাসোসিয়েশন।

তবে একই হাসপাতালে কোভিড ও অন্য রোগীদের চিকিৎসা করা হলে জটিল রোগে আক্রান্তরা ঝুঁকিতে পড়বে এমন যুক্তি দেখিয়ে এ সিদ্ধান্তের বিষয়ে আপত্তি জানিয়েছে বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল অ্যাসোসিয়েশন।

এদিকে নির্দেশ না মানলে হাসপাতালের নিবন্ধন বাতিল ও আইনি ব্যবস্থার হুঁশিয়ারি দিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

গত ২৪ মে ৫০-এর বেশি শয্যা থাকা সব হাসপাতাল, ক্লিনিকে কোভিড উনিশ রোগীদের চিকিৎসা করার নির্দেশ জারির আগ পর্যন্ত সারাদেশে ৯৭টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে করোনা সেবা চলছিল। এসব হাসপাতালে সাধারণ শয্যা সংখ্যা ১৩ হাজার ৯শত ৬৪টি এবং আইসিইউ শয্যা ৩৯৯টি।

দেশে জ্যামিতিক হারে বাড়তে থাকা করোনাভাইরাস সংক্রমিতদের চিকিৎসা সেবা সারাদেশে ছড়িয়ে দেওয়ার বিকল্প দেখছে না স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব হাবিবুর রহমান খান বলেন, দেশের কোনো জায়গার করোনা রোগীরা যেন বিনা চিকিৎসায় না থাকে। করোনা আক্রান্ত হলেই নিকটস্থ হাসপাতালে চিকিৎসা যেন দেওয়া হয়।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এই নির্দেশ যদি বাস্তবায়িত হয়, তবে কোভিড রোগীদের জন্য উন্মুক্ত হবে বেসরকারি হাসপাতালের প্রায় ৯০ হাজার সাধারণ এবং সাতশ’র মতো আইসিইউ শয্যা। আরো যোগ হবে সরকারি হাসপাতালের প্রায় ৪০ হাজার সাধারণ এবং দুইশ’র মতো আইসিইউ শয্যা।

ইতোমধ্যে এ নির্দেশনা বাস্তবায়নের উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ প্রাইভেট ক্লিনিক, হাসপাতাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার ওনার অ্যাসোসিয়েশন।

বাংলাদেশ প্রাইভেট ক্লিনিক অ্যান্ড ডায়াগনস্টিকস ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব ডা. মইনুল আহসান বলেন, ‘৫০ শয্যার হাসপাতাল আছে ৩শ এর বেশি। সকলেই একমত।’

তবে প্রাইভেট মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল অ্যাসোসিয়েশন মনে করে, এই সিদ্ধান্ত জটিল রোগীদের জন্য বিপর্যয় ডেকে আনবে।

বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট এম এ মুবিন খান বলেন, যদি একই হাসপাতালে জটিল রোগীর পাশাপাশি করোনা রোগীও থাকে। আর কোনোভাবে সেটা যদি ছড়ায় তাহলে সেটা হবে বিপজ্জনক।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব হাবিবুর রহমান খান বলেন, প্রথমে দেখবো সক্ষমতা থাকা সত্ত্বেও কারা এটিতে রাজি নয়। সেই তালিকা করে সরকার অবশ্যই আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

তবে এর আগে প্রতিবাদের মুখে হাসপাতালে না যাওয়া চিকিৎসকদের রেজিস্ট্রেশন বাতিলের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছিল স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

জয়নিউজ/এসআই
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...