মুদি দোকানে বিক্রি হচ্ছে টিসিবির তেল

0

হাটহাজারীতে মুদির দোকানে অবৈধভাবে বিক্রি হচ্ছে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) ন্যায্য মূল্যের সয়াবিন তেল।

করোনা নিয়ে প্রশাসনের ব্যস্ততা এবং রমজানকে কাজে লাগিয়ে উপজেলার কিছু অসাধু ব্যবসায়ীর যোগসাজসে গ্রামাঞ্চলের দোকানগুলোতে পৌঁছে যাচ্ছে এ তেল।

এ বিষয়ে প্রশাসনের পক্ষ থেকে বার বার অভিযান পরিচালনা করা হলেও ব্যবসায়ীরা উপেজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারে তেলের বোতলে লাগানো লেবেল খুলে অভিনব পন্থায় বিক্রি করে যাচ্ছে।

শনিবার ( ২ মে)মির্জাপুর ইউনিয়নের চারিয়াবাজার এলাকায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুহুল আমিন বাজার মনিটরিং করতে গেলে এমন চিত্র উঠে আসে। ওই সময় বাজরের দুই মুদির দোকান থেকে লেবেলবিহীন টিসিবির ১২ লিটার সয়াবিন তেল জব্দ করে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এছাড়া অবৈধভাবে টিসিবির পণ্য মুদি দোকানে বিক্রির দায়ে দুই দোকানদারকে ২ হাজার করে মোট ৪ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া ২৯ এপ্রিল দুপুরে ধলই ইউনিয়নের মুনিয়াপুকুর পাড় বাজারে আবুল কালাম স্টোর নামে একটি মুদির দোকানে অভিযান চালিয়ে ২শ ২৭ লিটার সয়াবিন তেল জব্দ করে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় দোকানের মালিক আবুল কালামকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এর আগে ১৯ এপ্রিল বিকালে মির্জাপুর ইউনিয়নের মুহুরীহাট বটতল এলাকার বিসমিল্লাহ স্টোর নামে এক মুদির দোকানে টিসিবির তেল বিক্রি করার সময় দোকান থেকে ৭০লিটার সয়াবিল তেল জব্দ করে ভ্রাম্যমাণ আদালত। ওই সময়ও দোকানের মালিক মো. আলমগীরকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

এ ব্যাপারে ইউএনও রুহুল আমিন জয়নিউজকে বলেন, টিসিবির পণ্য এভাবে মুদির দোকানে বিক্রি করা দণ্ডনীয় অপরাধ। টিসিবির পণ্য দোকানে বিক্রির কোনো সুযোগ নেই। তবে করোনা নিয়ে প্রশাসনের ব্যস্ততা এবং রমজানকে কাজে লাগিয়ে এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ীরা উপজেলার বিভিন্ন স্থানে বিশেষ করে মুদির দোকানে টিসিবির সয়াবিন তেল বিক্রয় করে আসছিল। বিষয়টি আমলে নিয়ে আমরা যখন মুদির দোকানগুলোতে অভিযান পরিচালনা করি তখন তারা (ব্যবসায়ী) তেলের বোতলের লেবেল খুলেও পৃথক অভিনব পন্থা বেছে নিয়ে বিক্রয় করে আসছে। আশাকরি এতেও তাদের শেষ রক্ষা হবে না। বাজার মনিটরিংকালে আমরা এ বিষয়টির প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছি এবং দোকানদারদের সতর্কও করছি।

তিনি আরো বলেন, যে বা যারা এই কাজ করবেন তাদেরকেই আইনের আওতায় আনা হবে। এ ধরনের কর্মকাণ্ডে যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে উপজেলার প্রশাসনের পক্ষ হতে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

জয়নিউজ/তালেব/বিআর
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...