জনগণের নিরাপত্তায় মোড়ে মোড়ে মেয়র নাছিরের মাইকিং

0

রাজনীতির সর্বজন অনেক সংজ্ঞা রয়েছে। তবে তার মধ্যে মূল কথা হচ্ছে, জনগণের কল্যাণেই যেই নীতি সেটিই প্রকৃতি রাজনীতি। শুধু রাজনীতি নয় বরং সমাজের সভ্য হিসেবে আমরা কেউই সামাজিক দায় থেকে মুক্ত নই। তবে একথা সত্য যে, সেবামূলক কাজ হিসেবে রাজনীতির সামাজিক দায়বদ্ধতা অন্যদের চেয়ে বেশিই বলতে হবে।

জনগণের জন্যই রাজনীতি, এ নীতিতে বিশ্বাস করেই রাজনীতি ও সমাজকর্ম করেন চট্টগ্রামের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন সেই কথা সবার জানা। সেই দায়বদ্ধতা থেকে ঘরে বসে থাকার মানুষ তিনি নন। করোনা মোকাবেলায় দিন-রাত কাজ করছেন সিটি মেয়র নাছির।

সোমবার (২৩ মার্চ) সকালে নগরের লালখান বাজার, ওয়াসা মোড়, জিইসি মোড়, দুই নম্বর গেট, ষোলশহর রেল স্টেশন, মুরাদপুর, বহদ্দার হাট, চকবাজার, জামালখান, কাজীর দেউড়ি, আন্দরকিল্লা ও বকশির হাটসহ বিভিন্ন এলাকায় মাইকিং করতে দেখা গেছে মেয়রকে।

বিদেশফেরত মানুষকে ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ও সামাজিক মাধ্যমে গুজব না ছড়ানোর আহ্বান জানিয়ে মাইকিং মেয়র বলেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে জেনারেল হাসপাতালে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। তা ছাড়া প্রতিটি ওয়ার্ড মেডিকেল সেন্টারে নিয়োজিত ডাক্তারদের এ সংক্রান্তে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, বিদেশফেরত হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তিরা নির্দেশনা না মানলে তাদের সচেতন করুন। নিজে, পরিবার পরিজন, পাড়া-প্রতিবেশীকে করোনার সংক্রমণ থেকে বাঁচাতে হোম কোয়ারেন্টাইনে তাদের থাকতে হবে। তারা যদি নির্দেশনা না মানে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কাছে সংবাদ দিন, আমাকে জানান। আমি ব্যবস্থা নেবো। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ঢালাওভাবে প্রচার প্রচারণা চালিয়ে তথ্য বিভ্রান্তি সৃষ্টি করবেন না।

তিনি আরো বলেন, করোনা শঙ্কার কারণে সব কর্মজীবীর আয় কমে গেছে। এতে করে নিম্নআয়ের মানুষের মধ্যে হতাশার সৃষ্টি হয়েছে। এই দুঃসময়ে নানামুখী উদ্যোগ নিয়ে নিম্নআয়ের মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে।

অসচ্ছল মানুষের সহায়তায় সমাজের বিত্তবান শ্রেণিকে এ দুর্দিনে পাশে থাকার জন্য মেয়র আহ্বান জানান।

জয়নিউজ/বিআর
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...