দোলনায় শিশু, ফাঁসিতে ঝুললো মা

0

রাউজান কদলপুর ইউনিয়নে দুধের শিশুকে দোলনায় রেখে রুবি আকতার (২৬) নামে এক গৃহবধূ শয়নকক্ষে ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যা করেছে।

মঙ্গলবার (১৭ মার্চ) বিকালে ইউনিয়নের মধ্যম কদলপুর এলাকার মালেক চৌকিদার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, নয় বছর আগে প্রেমের সম্পর্কে কদলপুর ইউনিয়নের বদিউল আলমের ছেলে আলমগীরের সঙ্গে রুবি আকতারের সঙ্গে বিয়ে হয়। রুবি রাঙ্গুনিয়ার পোমরা শান্তিরহাট এলাকার তৌহিদুল হকের মেয়ে। তাদের ঘরে জন্ম নেয় এক ছেলে ও দুইকন্যা সন্তান।

রুবি আকতারের মা জয়নিউজকে জানান, আমার মেয়ের জামাই আলমগীর অন্য মেয়ের সঙ্গে পরকিয়ায় লিপ্ত ছিল। বিদেশ থেকে ১০ দিনের জন্য দেশে এসে ঢাকায় গিয়ে এক মেয়ের সঙ্গে দেখা করে গত ২২ ফেব্রুয়ারি আবার বিদেশে চলে যায়।
ওই মেয়ের সঙ্গে রং নাম্বারে পরিচয় হয়েছে বলে আমার মেয়ের কাছে স্বীকার করেছিল আলমগীর। এ নিয়ে মেয়ের সঙ্গে পারিবারিক কলহ চলছিল। মাঝে মধ্যে শাশুড়ির সঙ্গে ঝগড়া হতো।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক প্রতিবেশী জানান, রুবি আকতার একটু চঞ্চল টাইপের। শাশুড়ির সঙ্গে সবসময় ঝগড়া করতো। অনেকটা প্রতিবাদীমুখী ছিল। শাশুড়িকে মানসিক নির্যাতন করতো।

নিহতের শাশুড়ি নিলু আকতার জয়নিউজকে বলেন, আমরা নিঃসন্তান ছিলাম। সুখের আশায় আলমগীরকে দত্তক নিয়েছিলাম। ছেলেকে মানুষ করেছি। এরমধ্যে আমার দূর সম্পর্কের আত্মীয় তৌহিদুল হকের মেয়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। আমি মেনে নিয়েছিলাম, আনুষ্ঠানিকভাবে বিয়েও হয়েছে। স্বামী-স্ত্রীর সঙ্গে ফোনে কি কথা হয়েছে জানি না। রাগারাগি করে তার সাত মাসের মেয়েকে নিয়ে রুমে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দেয়। পরে মেম্বারসহ এলাকার লোকজন এসে দরজা ভেঙে বের করেছে।

রাউজান থানার এসআই টুটুন মজুমদার জয়নিউজকে বলেন, আমরা খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করেছি। ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হবে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি এটি আত্মহত্যা। তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্টে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

জয়নিউজ/শফিউল/বিআর
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...