পেঁয়াজ নিয়ে লঙ্কাকাণ্ড!

0

বান্দরবানে পেঁয়াজ নিয়ে লঙ্কাকাণ্ড হয়েছে। কম দামে পেঁয়াজ বিক্রি করে বাজারের মুদি ব্যবসায়ী সমিতির সিন্ডিকেট চক্রের বিরুদ্ধে যাওয়ায় ভ্রাম্যমাণ পেঁয়াজ বিক্রেতা মো. এরশাদকে মারধর করেছে এক মুদি দোকানদার।

এসময় ভ্রাম্যমাণ বিক্রেতার ভ্যান থেকে পেঁয়াজ মাপার মেশিন ছিনিয়ে নেওয়া এবং ভ্যানের অনেক পেঁয়াজ ছুঁড়ে ফেলে দেওয়ার অভিযোগও উঠেছে ব্যবসায়ী সমিতির বিরুদ্ধে। এসময় মুহুর্তে তালিকা বদলে ৮০ টাকার পেঁয়াজ ৫৫ টাকায় নেমে আসে।

মঙ্গলবার (১৭ মার্চ) এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও ক্রেতারা জানায়, বান্দরবান বাজারের মসজিদের সামনে ভ্যানগাড়িতে করে ভ্রাম্যমাণ এক বিক্রেতা প্রতিকেজি ৬০ টাকা দামে ভারতীয় পেঁয়াজ বিক্রি করছিলেন। সস্তায় পেঁয়াজ কিনতে ক্রেতাদের ভিড়ও বেড়ে যায় ভ্রাম্যমাণ খুচরা বিক্রেতার ভ্যানগাড়ির দোকানে। এসময় ক্রেতাদের কম দামে ৬০ টাকায় পেঁয়াজ বিক্রি না করতে নিষেধ করেন মুদি ব্যবসায়ী সমিতি নেতা স্বপ্নচূড়া সুপার শপের মালিক পিন্টু দাশ।

এদিকে ক্রেতারা পেঁয়াজ কিনতে চাইলে ক্রেতাদেরও বাঁধা দেন সিন্ডিকেট চক্রের এ নেতা। তারপরও ক্রেতারা পেঁয়াজ কিনতে চাওয়ায় ভ্রাম্যমাণ খুচরা পেঁয়াজ ব্যবসায়ী এরশাদকে মারধর করে চরথাপ্পর মেরে পেঁয়াজ মাপার মেশিন ছিনিয়ে নিয়ে যায়।
এ ঘটনায় ক্রেতাদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে বাজারে দায়িত্বরত পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে দুইজনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। তাৎক্ষনিক মুদি ব্যবসায়ী সমিতির সিন্ডিকেটচক্র দ্রুত ৮০ টাকা দামের মূল্য তালিকা সরিয়ে ৫৫ টাকায় এককেজি পেঁয়াজ বিক্রির মূল্যতালিকা বদলে দেন।

অভিযোগ রয়েছে শুধু পেঁয়াজ নয়, স্বপ্নচূড়া সুপার শপের বিরুদ্ধে নিত্যপ্রয়োজনীয় সব জিনিসের অতিরিক্ত দাম নেওয়ার।
ভ্রাম্যমাণ পেঁয়াজ বিক্রেতা এরশাদ অভিযোগ করে জয়নিউজকে বলেন, আমি চট্টগ্রাম থেকে প্রতি কেজি পেঁয়াজ ৫১ টাকায় সংগ্রহ করে বান্দরবান বাজারে ৬০ টাকা দামে বিক্রি করছি। নয় টাকা লাভের মধ্যে গাড়িভাড়া এবং আমার খরচ বাদ দিলেও কয়েক টাকা লাভ থাকে। কিন্তু কম দামে পেঁয়াজ বিক্রির অভিযোগে আমাকে মারধর করা হয়েছে। পেঁয়াজ মাপার মেশিন ছিনিয়ে নিয়েছেন।

স্থানীয় ক্রেতা মো. শাহীন ও নজরুলসহ অনেকে অভিযোগ করে জয়নিউজকে বলেন, মুদি ব্যবসায়ী সমিতি সিন্ডিকেট করে পেঁয়াজ, চিনিসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের অতিরিক্ত দাম নিচ্ছে। বছরে একবার ঢাকঢোল পিটিয়ে মুষ্টিমেয় গরীব অসহায়দের শীতবস্ত্র, শাড়ি-লুঙ্গি বিতরণের আড়ালে প্রশাসনকে ম্যানেজ করে স্থানীয়দের জিম্মি করে উচ্চদামে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র বিক্রি করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন।

আন্তর্জাতিক বাজারে পণ্যের দাম বাড়লে হুট করে দাম বাড়িয়ে দেয় সিন্ডিকেট। কিন্তু পণ্যের দাম কমলেও তারা আর কমায় না। আগের কেনা বলে বেশি দামে বিক্রি করে তারা।

এ বিষয়ে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহীদুল ইসলাম চৌধুরী জয়নিউজকে বলেন, পেঁয়াজ বিক্রি নিয়ে মারধরের ঘটনায় দুইজনকে আটক করা হয়েছে। সন্ধ্যার মধ্যে বিষয়টি উভয়ের সদিচ্ছায় সমাধান না হলে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জয়নিউজ/আলাউদ্দিন/বিআর
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...