কাথারিয়ার দূর গ্রামে গেলেন ৩ শেখ, দিলেন কোটি টাকার অনুদান

0

বাঁশখালীর কাথারিয়া ইউনিয়নের সাতটি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে আর্থিক সহায়তা দিয়েছেন আরব দেশ ওমান থেকে আসা ৩ জন শেখ। তাঁরা হলেন সেলিম আলী আব্দুল্লাহ, খলিফা সেলিম মোহাম্মদ ও আল সাঈদ হোমাইদ।

শনিবার (২ নভেম্বর) ওই তিন শেখ দক্ষিণ বাগমারা, পূর্ব বাগমারা, পশ্চিম বাগমারাসহ বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখেন।

সরেজমিন ঘুরে চাহিদা অনুসারে তাঁরা ৭টি মসজিদ, মাদ্রাসা ও হেফজখানার প্রতিটিতে ২০ লাখ থেকে ১ কোটি টাকার আর্থিক অনুদান দেন।
সরেজমিন পরিদর্শনের সময় তাঁদের পূর্বের দেওয়া অর্থের সঠিক ব্যবহার হয়েছে কি-না তারও খোঁজ-খবর নেন।

এদিকে ওই তিন শেখকে কাথারিয়া আসতে সহায়তা করেন কাথারিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান চৌধুরী এবং ওমান প্রবাসী মো. শরীফুল ইসলাম।

আর্থিক সহায়তা প্রদানকালে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রফেসর মফিজ উদ্দিন, টিএসপি কর্মকর্তা সাবের আহমদ, স্ট্যার্ন্ডাড ব্যাংক পাঁচলাইশ থানার ব্যবস্থাপক জাহেদুল ইসলাম, মঞ্জুর আলম, শাহজাহান মাতব্বর, মৌলানা আবু তাহের ও শিক্ষক মরতুজা আলী।

তিন শেখের আর্থিক সহায়তা পাওয়া মসজিদ-মাদ্রাসাগুলো হলো- পশ্চিম বাগমারা অলি আহম্মদ চৌধুরী হেফজখানা ও ফোরকানিয়া মাদ্রাসা, দক্ষিণ বাগমারা আব্বাস আলী খান জামে মসজিদ, বায়তুন নুর জামে মসজিদ, নতুন পুকুরপাড় জামে মসজিদ, বাগমারা অলিশাহ ছুন্নিয়া দাখিল মাদ্রাসা, পূর্ব বাগমারা আসহাব উদ্দিন জামে মসজিদ ও হাজীপাড়া জামে মসজিদ।

ওমানের শেখ আল সাঈদ হোমাইদ জয়নিউজকে বলেন, মনের সন্তুষ্টি ও আল্লাহর এবাদাতের জন্য গরিব মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছি। এটাই আমাদের কাজ। সব বিত্তবানের এ কাজ করা উচিত।

কাথারিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান চৌধুরী বলেন, শেখদের অর্থে কাথারিয়া ইউনিয়নে কয়েকটি মসজিদ পুরোপুরি নির্মিত হয়েছে। কয়েকটি মসজিদ ও মাদ্রাসার কিছু অংশ তাঁদের অর্থে হয়েছে। দানের জন্য আরও কিছু প্রতিষ্ঠান তালিকাভুক্ত করা হয়েছে।

জয়নিউজ/উজ্জ্বল

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...