কোয়ার্টার ফাইনালে ইংল্যান্ড,প্রতিপক্ষ ফ্রান্স

0

গ্রুপপর্বে চ্যাম্পিয়ান সেনেগালকে গোলের সুযোগ না দিয়ে শেষ ষোলো থেকে বিদায় করে দিলেন ইংল্যান্ড। ইংলিশদের বিপক্ষে ৩-০ গোলে হেরে কাতার বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিতে হয়েছে আফ্রিকান আলিউ সিসের দলকে।

অন্যদিকে দারুণ জয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে পা রেখেছে ইংল্যান্ড। তাদের প্রতিপক্ষ বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স। আগামী ১১ ডিসেম্বর রাত ১টায় ফরাসিদের বিপক্ষে মাঠে নামবে ইংলিশরা।

কাতারের আল বাইত স্টেডিয়ামে সেনেগালের বিপক্ষে ম্যাচের শুরু থেকে বলের নিয়ন্ত্রণ নেয় ইংল্যান্ড। তবে আক্রমণে দলটি ছিল ধাঁরহীন। উল্টো পাল্টা আক্রমণে উঠে সেনেগাল তৈরি করছিল একের পর এক গোলের সুযোগ।

সে সব আবার ইংলিশ ফুটবলারদের ভুলে। ২৩তম মিনিটে হ্যারি ম্যাগুয়ারের ভুল পাস থেকে বল পেয়ে যান ক্রেপিন দিয়াত্তা। তবে তার ক্রস থেকে বুলায়ে দিয়ার মিস-হিটের পর ইসমাইলা সারের লক্ষ্যভ্রষ্ট শট নেন।

মিনিট দশেক পর আবারও ইংল্যান্ডের ভুলে গোলের সম্ভাবনা জাগায় সেনেগাল। ৩২তম মিনিটে ইংল্যান্ড বেঁচে যায় গোলরক্ষক জর্ডান পিকফোর্ডের কৃতিত্বে।

বুলায়ো সাকার ভুল পাস থেকে সার বল পেয়েই বাড়ান দিয়াকে। তবে দিয়ার বাঁ পায়ের দারুণ শট রুখে দেন পিকফোর্ড।

এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ সেনেগালিজ ফুটবলাররা নষ্ট করলেও, ইংল্যান্ড তা করেনি। ৩৮তম মিনিটে হুট করে আক্রমণে উঠে গোল পেয়ে যায় ইংল্যান্ড।

জুড বেলিংহামের পাস থেকে আলতো টোকায় বল জালে পাঠান হ্যান্ডারসন। এরপর দ্রুত সময়ের মধ্যে আরও দুটি গোলের সুযোগ তৈরি করে ইংল্যান্ড। কিন্তু সফলতা পায়নি দলটি।

ইংল্যান্ড দ্বিতীয় গোলটি পায় ইনজুরি সময় পেরিয়ে যাওয়ার পর। দুরন্ত এক পাল্টা আক্রমণ থেকে বেলিংহাম বল বাড়ান বাঁ প্রান্তে থাকা ফিল ফোডেনকে।

এই ম্যানচেস্টার সিটি তারকা কালক্ষেপণ না করে ডান প্রান্তে দৌড়াতে থাকা হ্যারি কেইনকে বল বাড়ান। কেইন দারুণ এক শটে সেই বল পাঠান জালে। কাতার বিশ্বকাপে এটাই কেইনের প্রথম গোল।

দ্বিতীয়ার্ধে নেমেও আক্রমণের ধারা অব্যাহত রাখে ইংলিশরা। গোল আসতেও সময় লাগেনি বেশি। ম্যাচের ৫৭ মিনিটে ফোডেনের অ্যাসিস্ট থেকে দারুণ গোলে ব্যবধান ৩-০ করেন আর্সেনাল মিডফিল্ডার বুকায়ো সাকা।

এরপর আর ম্যাচে ফেরার কথা ভাবেনি সেনেগাল। উল্টো ইংলিশদের বিপক্ষে আর গোল হজম না করাতেই মনোযোগী হয়। তবে সেনেগালের রক্ষণ ভেদ করার চেষ্টাটা অব্যাহত রেখেছিল ইংলিশরা।

যদিও কাজ হয়নি তাতে। ব্যবধান বাড়ানো যায়নি আর। শেষ পর্যন্ত ৩-০ গোলেই নিষ্পত্তি হয়েছে ম্যাচের ভাগ্য। বিশ্বকাপের মিশনে ইংলিশরা উঠে গেছে আরো একধাপ।

জেএন/পিআর

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...