টুইটারের সব অফিস সাময়িক বন্ধ!

0

বিশ্বের শীর্ষ ধনী ইলন মাস্কের মালিকানাধীন সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম টুইটারের সব অফিস সাময়িকভাবে বন্ধ করার ঘোষণা এসেছে। এ সংক্রান্ত একটি বার্তা কর্মীদের কাছে পাঠিয়েছে কোস্পানিটি। খবর বিবিসির।

প্রতিবেদনে ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যমটি জানায়, কোম্পানির সব অফিস ভবন সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেওয়া হবে বলে মেইল বার্তায় কর্মীদের জানিয়েছে টুইটার। অবিলম্বে এ ঘোষণা কার্যকর হবে বলে মেইলে জানানো হয়।

ওই মেইলে কর্মীদের উদ্দেশে বলা হয়, আগামী ২১ নভেম্বর অর্থাৎ সোমবার আবার অফিস খুলবে। তবে কি কারণে সব অফিস বন্ধ করা হয়েছে তা নিয়ে মেইলে কোনো কিছুই জানানো হয়নি।

গত মাসে ৪ হাজার ৪০০ কোটি মার্কিন ডলারে টুইটার কেনেন ধনকুবের ইলন মাস্ক। এরপরেই কোম্পানিটি থেকে ছাঁটাই করা হয় বহু কর্মীকে। এমনকি নতুন নতুন অনেক নিয়ম চালু করা হয়েছে।

এর মধ্যে রয়েছে কর্মঘণ্টা বৃদ্ধি। এর জেরে পদত্যাগ করছেন বহু কর্মী। ঠিক সেই সময়েই অফিস বন্ধ করার ঘোষণাটি আসলো।

টুইটার থেকে কর্মীদের দেওয়া মেইলটি হাতে এসেছে বিবিসির। ওই মেইলে বলা হয়, ‘সাময়িক সময়ের জন্য আমাদের সব অফিস বন্ধ করা হচ্ছে। আগামী সোমবার অর্থাৎ ২১ নভেম্বর সব কার্যালয় ফের চালু হবে।

সোশ্যাল মিডিয়া, প্রেস কিংবা অন্য কোথাও কোম্পানির গোপনীয় তথ্য নিয়ে আলোচনা করা থেকে বিরত থাকুন। অনুগ্রহ করে কোম্পানির নীতি মেনে চলুন। ’

অফিস বন্ধ করা নিয়ে বিবিসি টুইটার কর্তৃপক্ষকে জিজ্ঞাসা করলেও তারা তাৎক্ষনিক কোনো মন্তব্য করেনি।

বিবিসি বলছে, চলতি সপ্তাহে টুইটার কর্মীদের দীর্ঘ সময় কাজ করার কথা জানিয়েছেন মাস্ক। না হলে প্রতিষ্ঠান ছেড়ে দিতে বলেছেন।

মেইলের মাধ্যমে সোশ্যাল প্ল্যাটফর্মটির নতুন মালিক বলেন, ‘টিকে থাকতে চাইলে কর্মীদের এভাবে কাজ করতে রাজি হতে হবে। বৃহস্পতিবারের মধ্যে যারা এতে সই করবেন না, তাদের তিন মাসের বেতন দিয়ে ছুটি দেওয়া হবে। ’

বিবিসি জানিয়েছে, মাসখানেক আগে অর্ধেক কর্মী ছাঁটাইয়ের কথা জানিয়েছিলেন মাস্ক। আর সবশেষ অফিস বন্ধ করার ঘোষণাটি কর্মঘণ্টা বাড়ানোর পরেই এলো। মাসেকর নতন নিয়ম না মেনে বহু কর্মী পদত্যাগ করছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক টুইটারের সাবেক এক কর্মী বিবিসিকে বলেছেন, ‘পদত্যাগ ও ছাঁটাইয়ের পর সম্ভবত দুই হাজার লোক টুইটারে অবশিষ্ট থাকবে। ’

ওই কর্মীর টিমের সকলকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে বলেও জানান টুইটারের সাবেক এই কর্মী।

মাস্কের টুইটারের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার আগে কোম্পানিটিতে প্রায় ৮ হাজার কর্মী ছিল। এমনকি হাজার হাজার চুক্তি ভিত্তিক কর্মী ছিল। তবে মাস্ক এসই বেশিরভাগকে ছাঁটাই করেছেন।

টুইটারের সদ্য পদত্যাগ করা আরেক কর্মী বিবিসিকে বলেন, ‘আমি এমন একজনের জন্য কাজ করতে চাইনি যিনি কি না একাধিকবার মেইলের মাধ্যমে আমাদের হুমকি দিচ্ছেন। ব্যতিক্রর্মী টুইপগুলোর সেখানে কাজ করা উচিত। পদত্যাগ করার আগে আমি প্রতি সপ্তাহে ৬০-৭০ ঘণ্টা পর্যন্ত কাজ করেছিলাম। ’

শীর্ষ ধনকুবের এবং বৈদ্যুতিক গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান টেসলার প্রধান ইলন মাস্ক গত ২৭ অক্টোবর টুইটারের মালিকানা গ্রহণ করেন। তিনি ৪ হাজার ৪০০ কোটি মার্কিন ডলারে টুইটার কেনেন।

টুইটার কেনার পর মাস্ক বলেছিলেন, কোম্পানির গ্রাহকদের জন্য ফ্রির জমানা শেষ। অর্থের বিনিময়ে ব্যবহারকারীরা চাইলেই নিজেদের অ্যাকাউন্টকে ‘ভেরিফায়েড’ করে নিতে পারবেন। এ জন্য প্রতি মাসে পকেট থেকে খসবে আট ডলার। তবে পরে সেই নিয়ম স্থগিত করেছে তারা।

গত মাসে টুইটারের মালিকানা গ্রহণ করেই প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) পরাগ আগারওয়ালসহ কোম্পানির কয়েকজন শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তাকে চাকরিচ্যুত করেন মাস্ক। ইতোমধ্যে তিনি টুইটারের হাজারো কর্মীকে ছাঁটাই করেছেন।

কর্মীদের কর্মঘণ্টা বাড়িয়ে ছুটি বন্ধ করেছেন। যারা বাড়িতে বসে অফিস করছিলেন, তাদের অফিসে এসে কাজের নির্দেশ দিয়েছেন।

জেএন/পিআর

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...