৪০৮ রানের ম্যাচে অস্ট্রেলিয়াকে হারাল ইংল্যান্ড

0

তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করেছে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া। সফরকারী ইংল্যান্ডের ২০৮ রানের জবাবে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়া থেমেছে ২০০ রানে। ফলে ৮ রানে জিতেছে ইংল্যান্ড।

পার্থে টস হেরে আগে ব্যাট করতে নামে ইংল্যান্ড। স্বাগতিকদের পক্ষে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন অ্যালেক্স হেলস ও জস বাটলার। চোট কাটিয়ে একাদশে ফিরেই অর্ধশতক হাঁকিয়েছেন ইংলিশ অধিনায়ক। জনি বেয়ারস্টোর চোটে দলে জায়গায় পাওয়া হেলসও এই সুযোগ ভালোভাবেই কাজে লাগাচ্ছেন। মাত্র ১১.২ ওভারেই তারা দুইজন গড়েন ১৩২ রানের ঝড়ো জুটি।

হেলস ও বাটলারের টর্নেডো গতির এই জুটি ভাঙেন নাথান এলিস। বাটলারকে শিকার করেন তিনি। অধিনায়ক বাটলার ৩২ বলে ৬৮ রানের বিস্ফোরক ইনিংস খেলেন। ২১২.৫০ স্ট্রাইকরেটের এই ইনিংসে তিনি হাঁকান আটটি চার ও চারটি ছক্কা। বাটলারের বিদায়ের পর ক্রিজে আসেন বেন স্টোকস।

তিনে নামলেও সুবিধা করতে পারেননি স্টোকস। ৯ বলে ৯ রান করে মার্কাস স্টয়নিসের শিকার হন তিনি। স্টোকসের বিদায়ের পরের ওভারেই বিদায় নেন হেলস। হেলসের ৫১ বলে ৮৪ রানের ইনিংস থামান কেন রিচার্ডসন। তার উইলো থেকে আসে ১২টি চার ও তিনটি ছক্কা। ১৬তম ওভারে দলকে ১৬৭ রানে রেখে মাঠ ছাড়েন হেলস।

হেলসের পর আর কেউ বড় ইনিংস খেলতে না পারলেও ছোট ছোট কার্যকরী ইনিংসে দলকে দুই শতাধিক রানের সংগ্রহ এনে দেন ইংলিশ ক্রিকেটাররা। হ্যারি ব্রুক ১০ বলে ১২ রান, মঈন আলি ৭ বলে ১০ রান, ডেভিড মালান ২ বলে ২ রান ও ক্রিস ওকস ৫ বলে ১৩ রান করেন।

নির্ধারিত ২০ ওভারে ছয়টি উইকেট হারিয়ে ২০৮ রান সংগ্রহ করে ইংল্যান্ড। অজিদের পক্ষে তিনটি উইকেট শিকার করেন এলিস।

বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে প্রথম ওভার থেকেই ডেভিড ওয়ার্নার মারকুটে ব্যাটিং শুরু করলেও দ্বিতীয় ওভারের প্রথম বলেই আউট হন ক্যামেরন গ্রিন। দ্বিতীয় উইকেটে মিচেল মার্শকে নিয়ে দলকে জয়ের পথে রাখেন ওয়ার্নার। তবে ২৬ বলে ৩৬ রান করে মার্শ বিদায় নিলে ভেঙে যায় তাদের ৭১ রানের জুটি। অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ চারে নেমে ৭ বলে ১২ রান করে বিদায় নেন।

মার্কাস স্টয়নিস নেমেই ঝড় বইয়ে দেন। মাত্র ১৫ বলে ৩৫ রানের ক্যামিও ইনিংস খেলেন তিনি। তবে স্টয়নিস ও টিম ডেভিডকে একই ওভারে শিকার করে ম্যাচ ইংল্যান্ডের দিকে ঘুরিয়ে দেন মার্ক উড। তবে ওয়ার্নারের মারকুটে ব্যাটিংয়ে অজিদের জয়ের সম্ভাবনায় বেশি দেখা যাচ্ছিল। দুই ওভার বাদেই সেই ওয়ার্নারকেও শিকার করেন উড। ফলে ম্যাচ আবার ইংল্যান্ডের দিকে হেলে পড়ে। ম্যাথু ওয়েড ১৫ বলে ২৫ রানের ইনিংস খেলে ম্যাচ বাঁচানোর চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছেন।

জয়ের জন্য শেষ দুই ওভারে অস্ট্রেলিয়ার প্রয়োজন ছিল ২২ রান। ১৯তম ওভারে একটি উইকেট শিকারের পাশাপাশি মাত্র ছয় রান খরচ করেন রিচ টপলি। জয়ের জন্য অস্ট্রেলিয়ার সমীকরণ দাঁড়ায় ৬ বলে ১৬ রান। চার হাঁকিয়ে শেষ ওভার শুরু করেন ম্যাথু ওয়েড। তবে দ্বিতীয় বলেই আউট হয়ে যান তিনি। পরের চার বলে মাত্র তিন খরচ করে আরও একটি উইকেট নিয়ে ইংল্যান্ডের জয় নিশ্চিত করেন শেষ ওভারে বোলিং করা স্যাম কারান।

অস্ট্রেলিয়া থামে ৯ উইকেটে ২০০ রানে। ৮ রানে জিতেছে ইংল্যান্ড। ইংলিশদের পক্ষে উড তিনটি এবং টপলি ও কারান দুইটি করে উইকেট নেন।

জেএন/এও

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...