সাফজয়ী ৫ পাহাড়ী কন্যা রাঙামাটিতে সংবর্ধিত

0

সাফ নারী ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের ৫ পাহাড়ী কন্যাকে রাঙ্গামাটিতে বীরোচিত সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে।

রাঙামা‌টি‌তে সংবর্ধনা পেয়েছেন ঋতুপর্না চাকমা, রুপনা চাকমা, ম‌নিকা চাকমা, আনাই ও আনু‌ছিং ম‌গিনী। বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) রাঙামা‌টি জেলা প‌রিষদ ও প্রশাসন যৌথভা‌বে এ সংবর্ধনার আ‌য়োজন ক‌রে।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠা‌নে প্রতি খে‌লোয়াড়‌কে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড ৫০ হাজার টাকা, জেলা প‌রিষদ ২ লক্ষ টাকা ও ক্রেস্ট প্রদান ক‌রে। এছাড়া জেলা প্রশাসন, জেলা পু‌লিশসহ বি‌ভিন্ন সংগঠন তাদেরকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান ক‌রেন।

এদিন বিকাল ৫টায় রাঙামা‌টি মারী স্টে‌ডিয়া‌মে আ‌য়ো‌জিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠা‌নে প্রধান অ‌তি‌থি ছি‌লেন খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্প‌র্কিত সংসদীয় ক‌মি‌টির সভাপ‌তি দীপংকর তালুকদার, এম‌পি।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অংসুইপ্রু চৌধুরী, বিজিবি রাঙামাটি সেক্টর কমান্ডার কর্নেল মো: তরিকুল ইসলাম, সদর সেনা জোন কমান্ডার লে: কর্নেল মো: আশিকুর রহমান, পৌর মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অং সুই প্রু চৌধুরী বলেন, ‘যারা সাফ নারী ফুটবল গেমসে যারা বিজয় ছিনিয়ে এনেছে, আমাদের ইচ্ছে ছিল তাদের সবাইকে রাঙামাটিতে এনে সংবর্ধনা দেওয়ার।

তবে সময় সীমাবদ্ধতার কারণে আমার করতে পারিনি। এরপরেও আমি সকল ফুটবলারকে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ এবং আমার ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে সবাইকে অভিনন্দন জানাই।

ঋতুপর্না চাকমা বলেন, ‘মাঠে নামার আগে দেশের মানুষ যেভাবে ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আমাদের সাপোর্ট করেছে, তাতে আমাদের খুব ভালো লেগেছে। আজকে জেলাবাসী আমাদের অভিবাদন জানিয়েছেন এবং যে সম্মাননা দেখিয়েছেন সেজন্য তাদের কাছে কৃতজ্ঞ। আগামীতে নিজের সেরাটা দিয়ে খেলার চেষ্টা করব।’

এদিকে একই দিন সাফ জয়ী এ ৫ বীর কণ্যাকে আলাদাভাবে ক্রেস্ট উপহার দিয়ে অভিনন্দন জানিয়েছে রাঙামাটি জেলা পুলিশ। সাফজয়ী, পাহাড়ী কন্যা, রাঙামাটি, সংবর্ধিত

পাঁচ নারী ফুটবলার এর হাতে ক্রেস্ট তুলে দেন রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলার পুলিশ সুপার মীর আবু তৌহিদ, জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মাহমুদা বেগম। এসময় স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ এবং সর্বস্তরের জনসাধারণ।

জেএন/পিআর

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...