ভোগান্তির মাঝে কিছুটা স্বস্তি!

বোয়ালখালী-টাইগারপাস রুটে তিনজোড়া বাস

0

দীর্ঘ দুই দশক ধরে চট্টগ্রামের বোয়ালখালী সড়কে বাস সার্ভিস বন্ধ ছিলো। এসময় রাজপথে দাপট বাড়ে সিএনজি চালিত টুকটুকি নামের এক ধরণের টেম্পুর।

এর সাথে পাল্লা দিয়ে যোগ দেয় অটোরিকশা। নিয়ম নীতির বালাই না থাকায় ভাড়া আদায়ে নৈরাজ্যের সৃষ্টি হয় এ রুটে। অভিযোগ রয়েছে, সপ্তাহের বৃহস্পতিবার ও প্রতিদিন সন্ধ্যার পর কাপ্তাই রাস্তামাথা থেকে অটোটেম্পু-টেক্সি চালকের ইচ্ছে মাফিক ভাড়ায় বোয়ালখালীতে আসতে হয়।

তবে দীর্ঘদিনের এ ভোগান্তির অবসান ঘটেছে। দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমদ এমপির প্রচেষ্টায় চট্টগ্রামের বোয়ালখালী-টাইগারপাস রুটে যুক্ত হয়েছে বিআরটিসির বাস।

আজ বৃহস্পতিবার (৮ সেপ্টেম্বর) থেকে এ রুটে নতুন করে আরো দুই বিআরটিসি বাস যুক্ত হয়। বাস দুটি বোয়ালখালী উপজেলার আরাকান সড়কের মিলিটারিপুল থেকে যাত্রী আনা নেওয়া করবে নগরের টাইগার পাস পর্যন্ত।

বৃহস্পতিবার সকালে মিলিটারিপুল এলাকায় এ বাস সার্ভিসের উদ্বোধন করেন দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমদ এমপি।

শহীদুল ইসলাম জুয়েল নামের এক যাত্রী বলেন, ভোগান্তির মাঝে কিছুটা হলেও স্বস্তি দেবে বিআরটিসির এসব বাস সার্ভিস। অটো টেম্পু-টেক্সিগুলো তো সাধারণ মানুষের পকেট কাটছে। এছাড়া হরহামেশা দূর্ঘটনায় পড়ে এসব অবৈধ যানবাহনের দাপট থেকে সাধারণ যাত্রীদের মুক্তি মিলবে।

এর আগে এমপি মোছলেম উদ্দিন আহমদের উদ্যোগে গত বছরের ২ মার্চ উপজেলার কানুনগোপাড়া দাশের দিঘির পাড়-টাইগারপাস রুটে বিআরটিসির বাস সার্ভিসের উদ্বোধন করেছিলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। উদ্বোধনের পর বিআরটিসির ৪টি বাস চলাচল করছে এই রুটে।

এদিকে গতবছর চালু হওয়া বিআরটিসি বাসের যাত্রী আবদুল হক বলেন, বাস সার্ভিস চালু হওয়ায় উপকার হয়েছে। তবে পথে পথে যাত্রী ওঠানামা ও যানজটের কারণে কানুনগোপাড়া দাশের দিঘির পাড় থেকে বহদ্দারহাট পৌঁছাতে প্রায় দুই থেকে আড়াই ঘণ্টা সময় লাগছে।

এতে কালুরঘাট সেতুতে লাইন পেতে দেরি হলে তা আরো বেশি সময় লাগে বাস যাত্রায়। ফলে অনেকে মূল্যবান সময় বাঁচাতে বিআরটিসির বাসে চড়ছেন না। ঝুঁকি নিয়ে বাড়তি ভাড়ায় যাতায়াত করছেন অটোটেম্পু-টেক্সিতে।

উল্লেখ্য বোয়ালখালী উপজেলার কানুনগোপাড়া দাশের দিঘির পাড় থেকে নগরের বাসটার্মিনাল এবং বেঙ্গুরা থেকে বাসটার্মিনাল পর্যন্ত বাস সার্ভিস চালু ছিলো। দুই দশক আগে বেসরকারি পর্যায়ের এই বাস সার্ভিস নানান প্রতিকূলতায় বন্ধ হয়ে যায়।

জেএন/পূজন/পিআর

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...