হজে অনিয়ম : ২৬ এজেন্সিকে কারণ দর্শানোর নোটিশ

0

চলতি বছর পবিত্র হজে অনিয়মের অভিযোগে হজ ও ওমরা ব্যবস্থাপনা আইন, ২০২১’ অনুযায়ী দেশের ২৬টি এজেন্সিকে কারণ দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) দিয়েছে সরকার।

গত ১৬ আগস্ট থেকে ১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিভিন্ন মেয়াদে এসব হজ এজেন্সিকে কারণ দর্শানোর নোটিশ জারি করে মতামত দাখিলের জন্য চিঠি দিয়েছে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

ভুক্তভোগী হজযাত্রী, হজ কাউন্সিলর ও এ সম্পর্কিত সরকারের পরিদর্শক টিমের কাছ থেকে প্রাপ্ত অভিযোগ গুলোর মধ্যে রয়েছে হজ পালনের জন্য হজে পাঠানোর জন্য নিবন্ধনের অর্থ নিয়েও নিবন্ধন না করা, হজে না পাঠানো, অর্থ ফেরত না দিয়ে প্রতারণার আশ্রয় নেয়া।

তাছাড়া নির্ধারিত প্যাকেজের চাইতেও বেশি টাকা নেয়া, অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে হজযাত্রীদের গাদাগাদি করে নিম্নমানের হোটেলে এক রুমে রাখা, অস্বাস্থ্যকর, নিম্নমানের এবং পর্যাপ্ত খাবার না দেওয়া, পানির সুব্যবস্থা না করা।

এজেন্সিগুলোর বিরুদ্ধে আরো অভিযোগ উঠেছে হজযাত্রীদের লাগেজ ছাড়াই তাদের হোটেলে উঠানো, এক প্যাকেজের অর্থ নিয়ে অন্য (কম টাকার) প্যাকেজের সেবা দেয়া, মক্কা ও মদিনায় নির্ধারিত এলাকার থেকে দূরে হোটেলে রাখা, নির্ধারিত সময়ের চেয়ে কম দিনের প্যাকেজ করা, হজযাত্রীদের ভিজিট ভিসা দেওয়া, হজ গাইড না দেওয়া, যাতায়াতের জন্য বাসের ব্যবস্থা না করা ইত্যাদি।

অভিযুক্ত এজেন্সিগুলো হলো- খান জাহান আলী হজ ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলস, আল মদিনা ট্রাভেলস ইন্টারন্যাশনাল, আমদা ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলস, মাবরুরান হজ এজেন্সি, শানজারি ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরস, রিমাল ট্রাভেলস, বন্ধু এয়ার ইন্টারন্যাশনাল, মদিনা স্টার ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলস, আরব বাংলাদেশ ওভারসিজ অ্যান্ড হজ গ্রুপ, জাবেদ এয়ার ইন্টারন্যাশনাল প্রাইভেট লিমিটেড, স্কাই ওয়াল ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরস, ইয়াহিয়া ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরিজম, মেসার্স হলি এয়ার সার্ভিস, আল আকসা ট্রাভেলস, এন জেড ফাউন্ডেশন অ্যান্ড হজ মিশন, আল-নূর ট্রাভেলস, এম জি ইন্টারন্যাশনাল, আল হাসান ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলস, সুলতানা ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরস, কক্সবাজার ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলস, ইবনে বতুতা ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলস, মালিবাগ ট্রাভেলস, সালাম-আবাদ ট্রাভেলস, গ্লাসি এয়ার ইন্টারন্যাশনাল, ধানসিঁড়ি এয়ার ট্রাভেলস লিমিটেড ও মুবাল্লিগ ট্রাভেলস।

জানা গেছে, গত ৫ জুন থেকে ৫ জুলাই পর্যন্ত ১৬৫টি ফ্লাইটে বাংলাদেশ থেকে সৌদি আরবে যান ৬০ হাজার ১৪৬ জন হজযাত্রী (ব্যবস্থাপনা সদস্যসহ)।

এবার ৩৪৯টি হজ এজেন্সি হজ কার্যক্রম পরিচালনা করে। এ বছর সরকারিভাবে চার হাজার ১১৫ জন ও বেসরকারিভাবে এজেন্সিগুলোর মাধ্যমে ৫৫ হাজার ৮৮৫ জন হজ পালন করেছেন।

৮ জুলাই হজ অনুষ্ঠিত হয়। হজ শেষে দেশে ফেরার ফ্লাইট শেষ হয় গত ৮ আগস্ট।

জেএন/পিআর

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...