আদালতে দুই সংবাদকর্মীর ওপর হামলা, দোষীদের শাস্তির দাবি সাংবাদিক নেতাদের

0

টিভি ক্যামেরা জার্নালিস্টস এসোসিয়েশন (টিসিজেএ) চট্টগ্রামের স্থায়ী সদস্য ও যমুনা টেলিভিশনের ক্যামেরাপার্সন সৈয়দ আসাদুজ্জামান লিমন এবং যমুনা টেলিভিশনের রিপোর্টার আল আমিন শিকদারের ওপর হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে টিভি ক্যামেরা জার্নালিস্টস এসোসিয়েশন (টিসিজেএ) চট্টগ্রাম সহ চট্টগ্রামের সাংবাদিক সংগঠন গুলো।

এ ঘটনায় দোষীদের গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন (সিইউজে) সভাপতি মোহাম্মদ আলী, সাধারণ সম্পাদক ম. শামসুল ইসলাম, সিইউজে টিভি ইউনিট প্রধান মাসুদুল হক, চট্টগ্রাম টিভি জার্নালিস্টস এসোসিয়েশন সভাপতি নাসির উদ্দীন তোতা, সাধারণ সম্পাদক লতিফা আনচারী রুনা, টিভি ক্যামেরা জার্নালিস্টস এসোসিয়েশন (টিসিজেএ) চট্টগ্রামের সভাপতি শফিক আহমেদ সাজীব ও সাধারণ সম্পাদক দীপংকর দাশ বাবু।

বুধবার এক বিবৃতিতে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দরা এ দাবি জানান। বিবৃতিতে বলা হয়, সাংবাদিকদের ওপর বারবার হামলার ঘটনা ঘটলেও দোষীরা পার পেয়ে যাওয়ায় এ ধরণের ঘটনার পুনরাবৃত্তি হচ্ছে। অবিলম্বে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিলে সারাদেশের সাংবাদিকদের নিয়ে আন্দোলনের ডাক দেয়া হবে।

সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বলেন, চট্টগ্রাম আদালতে পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে সবসময় বিজ্ঞ আইনজীবীদের সহযোগিতা পেয়ছে সংবাদকর্মীরা। কিন্তু আইনজীবী পরিচয়ে আদালত প্রাঙ্গনে সাংবাদিকদের ওপর ন্যাক্কারজনক হামলা নিন্দনীয়। এ ঘটনায় দোষীরা পার পেলে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় নিয়োজিত আইনজীবীদের নিয়ে সাধারণের জনমনে নেতিবাচক ধারণার সৃষ্টি হবে। চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির নেতৃবৃন্দের উচিত শিগগিরই জ্যেষ্ঠ আইনজীবীদের নিয়ে এ ঘটনায় দোষীদের চিহ্নিত করে সাংগঠনিক ও আইনী ব্যবস্থা নেয়া।

বুধবার বিকালে চট্টগ্রাম আদালত এলাকায় পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে কতিপয় উচ্ছৃঙ্খল ব্যক্তির হামলার শিকার হন সৈয়দ আসাদুজ্জামান লিমন ও আল আমিন শিকদার। আইনজীবী পরিচয়ে তাদের ওপর হামলা করা হয়। এ ঘটনায় আহত দুই সাংবাদিককে চট্টগ্রামের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

জেএন/কেকে

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...