কাট্টলী ভূমি অফিসে দালালকে অর্থদণ্ড

0

নগরের কাট্টলী ভূমি অফিসে নামজারি করে দেয়ার কথা বলে এক সেবাগ্রহীতার কাছ থেকে টাকা নেয়া ও নোটিশে স্বাক্ষর দেয়ার অপরাধে জানে আলম নামে এক দালালকে ১৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করা হয়েছে।

সোমবার (২৭ জুন) দুপুর ২টায় কাট্টলী এলাকার সহকারী কমিশনার (ভূমি)-এর কার্যালয়ে এ অর্থদণ্ড দেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উমর ফারুক।

তিনি বলেন, জানে আলম নামে ওই দালাল এক সেবাগ্রহীতাকে নিয়ে আমার অফিসে আসেন। সেবাগ্রহীতা হাসিনা মমতাজ তাকে সরকারি ফিসের বাইরে অবৈধ অর্থের বিনিময়ে নামজারি করার প্রস্তাবের বিষয়টি জানালে জানে আলমকে আটক করা হয়। তার বাড়ি পাহাড়তলী এলাকায়। পরে তাকে অর্থদণ্ড দিয়ে মুচলেকা নেয়া হয়। জানে আলমের বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ছেলে-মেয়ে ও মানবিক দিক বিবেচনায় তাকে জেল-জরিমানার মতো কঠোর শাস্তি থেকে রেহাই দেয়া হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আমার অফিস দুর্নীতিমুক্ত। সব সেবাগ্রহীতার জন্য আমার অফিস উন্মুক্ত। দালাল ধরতে আমার অফিসের বাইরের বিভিন্ন টি স্টল ও কম্পিউটারের দোকানে আজ অভিযান পরিচালনা করি। এতে অনেক দালাল টের পেয়ে পালিয়ে যায়। পাশাপাশি দোকানিদের সতর্ক করা হয় তারা যাতে দালালদের সহায়তায় নিযুক্ত না হয়। এছাড়া তাদের জানানো হয় যেন দালালদের আনাগোনা থাকলে আমাদের বিষয়টি অবহিত করে।

এ বিষয়ে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ নাজমুল আহসান বলেন, চট্টগ্রাম জেলার ভূমি অফিসগুলোতে সেবাপ্রার্থীরা যাতে সরাসরি সেবা নিতে পারে সেজন্যে এসিল্যান্ডরা নির্দেশনা অনুযায়ী অফিস কক্ষের বাইরে এসে শুনানি নিচ্ছেন। সেবাগ্রহীতারাও এজন্য অনেক খুশি। দালালদের খপ্পর থেকে সেবাগ্রহীতাদের রক্ষার জন্যে ভূমি অফিসগুলোতে অনেক তথ্যসহ বিলবোর্ড দেওয়া আছে, যাতে সেবাপ্রার্থীরা সচেতন হয়। দালালমুক্ত পরিবেশে সেবা নিশ্চিত করতেই আমাদের সব উদ্যোগ কার্যকর করা হচ্ছে।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান বলেন, চট্টগ্রাম জেলায় ভূমি সেবা মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছানোর জন্য আমরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছি। এর আগেও দালাল ও দুর্নীতিবাজদের অনেককেই জেল-জরিমানা করা হয়েছে। ভবিষ্যতেও উপজেলা ও মহানগরের সব ভূমি অফিস দালাল ও দুর্নীতিবাজমুক্ত করতে এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

জেএন/এমআর

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...