অননুমোদিত হোটেল-রেস্তোরাঁর ব্যবসার লাগাম টানতে চাই ডিসি

0

চট্টগ্রামে জেলা প্রশাসনের রেকর্ডের বাইরে ও অসংখ্য আবাসিক হোটেল ও রেস্তোরাঁ ছাড়পত্র, নিবন্ধন এবং লাইসেন্স ব্যতীত অবৈধভাবে ব্যবসা পরিচালনা করছেন জানিয়ে এসব প্রতিষ্ঠান চিহ্নিত করে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা দিয়েছেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান।

আজ বৃহস্পতিবার (২ জুন) দুপুর ১২টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আবাসিক হোটেল ও রেস্তোরাঁ মালিক সমিতির সাথে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় তিনি এ নির্দেশনা দেন।

জেলা প্রশাসক বলেন, বাংলাদেশ হোটেল ও রেস্তোরাঁ ২০১৬ বিধি অনুযায়ী জেলা প্রশাসকের কার্যালয় হতে লাইসেন্স ইস্যু ও নবায়ন করা হয়ে থাকে।

তবে নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে কতিপয় ব্যবসায়ী অবৈধভাবে তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে যাচ্ছেন। ফলে সরকার বিপুল পরিমাণ রাজস্ব হতে বঞ্চিত হচ্ছে।

তিনি ছাড়পত্র, নিবন্ধন এবং লাইসেন্সবিহীন হোটেল ও রেস্তোরাঁসমূহকে আগামী ৩০ জুনের মধ্যে লাইসেন্সের আওতায় আসার আহবান জানান।

অন্যতায় বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়, হোটেল ও রেস্তোরাঁ সেল হতে ছাড়পত্র, নিবন্ধন এবং লাইসেন্স ব্যতীত হোটেল ব্যবসা পরিচালনাকারীগণকে আইনের আওতায় এনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

তাছাড়া হোটেল ও রেস্তোরাঁয় যাতে রাষ্ট্রবিরোধী কোন কর্মকান্ডে সৃষ্টি না হয় সেদিকে সজাগ থাকার আহবান জানিয়ে সকল হোটেল ও রেস্তোরাঁকে সিসিটিভি ক্যামেরার আওতায় আনা, কর্মচারীদের ডাটাবেইজ তৈরি করা এবং আগামী ১৫ দিনের মধ্যে লাইসেন্সে তথ্য প্রদানের নির্দেশনা প্রদান করেন জেলা প্রশাসক।

গেল দুই বছর যাবত করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব থাকার কারণে হোটেল ব্যবসা অনেকটা স্তিমিত হয়ে পড়ে। বর্তমানে করোনা শিথিল হওয়ায় আবাসিক হোটেল ও রেস্তোরাঁ পরিচালনা কার্যক্রম গতিশীল করা প্রয়োজন।

এই লক্ষ্যে জেলা প্রশাসনের উদ্দ্যেগে মতবিনিময় সভার আহবান করে। সভায় আবাসিক হোটেল ও রেস্তোরাঁ মালিক সমিতি সকলের সার্বিক সহযোগিতা কামনাসহ হোটেল ও রেস্তোরাঁয় পলিথিন ব্যবহার নিষিদ্ধ, মান-সম্মত খাবার পরিবেশন করার জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন জেলা প্রশাসক।

জেএন/টিটি

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...